ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল - আমাদের ধারাবাহিক পোস্টের সমষ্টি

ব্লগস্পট নিয়ে ধারাবাহিক টিউটোরিয়াল

ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল- গুগোল ব্লগার নিয়ে সঠিক তথ্য সম্বলিত আলোচনা

ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল- আমাদের লেখা টিউটোরিয়ালের তালিকায় আমরা রেখেছি কারণ, বাংলাদেশে প্রচুর ব্লগার আছেন যারা গুগোল ব্লগারে লেখালেখি করেন। নতুন হওয়ার কারণে গুরুত্বপূর্ণ অনেক কিছুই এখনো জানেন না। তাদের জন্য আমাদের ধারাবাহিক ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল। গুগোলের ব্লগারে একটি ব্লগ খোলার পেছনে বিভিন্ন ধরণের উদ্দেশ্য থাকতে পারে। যেমনঃ নিজের কথাগুলো লিখে সবাইকে জানানো, গল্প-কবিতা ইত্যাদি সাহিত্যচর্চা, লিখে অর্থ উপার্জন করা। যাদের যে উদ্দেশ্যই থাকুক না কেন, আমাদের টিউটোরিয়ালগুলো আশা করছি আপনাদের কাজে লাগবে। মূলত একটি ব্লগকে কিভাবে আরো সুন্দর এবং আকর্ষণীয় করে তোলা যায় এবং সেটা থেকে কিছু টাকাও আয় করা যায় সেটা নিয়ে ধারাবাহিকভাবে টিউটোরিয়াল প্রকাশিত হবে।

ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল- ব্লগার ব্লগের সাধারণ বৈশিষ্ট্যগুলো কি?


Blogger.com  গুগোলের একটা পণ্য। গুগোলের অন্য সব পণ্যের মত এটাও খুব ভালো মাণের একটা পণ্য। সবাইকে ফ্রীতে একটা সাবডোমেইন এবং একটা হোস্টিং দিচ্ছে(যদিও ইচ্ছামত এডিট করে ওয়েবসাইট তৈরি করতে দিচ্ছে না) এটা নিঃসন্দেহে এরকম অন্য সবগুলোর চেয়ে সেরা। সুন্দর সুন্দর থীম আছে যেগুলো একটি ব্লগের জন্য খুবই ভালো। বিভিন্ন Widget আছে যেগুলো যোগ করে যে কেউ তার ব্লগকে আরো সুন্দর করে তুলতে পারবেন। কাস্টম থীম এবং কাস্টম ডোমেইন এতে যোগ করা যায়। ফ্রীতে ssl certificate পাবেন, যেটা কিনতে হলে অন্য সব ওয়েবসাইটকে টাকা দিতে হয়। আপনি চাইলে SSL ছাড়াও চালাতে পারবেন। আবার দুইটা একসাথেও চালাতে পারবেন। https এবং http এটার কারণে সম্ভবত সার্চ ইঞ্জিনের রেজাল্টে কোন ইফেক্ট পড়বে না। 


ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল- Blogspot কেন সেরা?

ওয়ার্ডপ্রেস, Weebly, Wix এরকম আরো অনেক ওয়েবসাইট পাবেন যারা আপনাকে সাবডোমেইন সহ ওয়েবসাইট তৈরি করতে দেবে। কিন্তু এদের সাইটে হয়ত আপনি এড দেখাতে পারবেন না, হয়ত নিজের কোন ডোমেইন যোগ করতে পারবেন না, হয়ত ssl certificate, যেটার কারণে https সাইট চলে সেটা দেবে না। গুগোল সবকিছুই দিচ্ছে। একটা ডোমেইন কিনলে আর কিছুই দরকার পড়ে না, বাকিগুলো ফ্রীতেই পাওয়া যায়। ডায়নামিক একটা ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব না হলেও যেটা তৈরি করা যায় সেটাই আমাদের অনেকের জন্য যথেষ্ট। এই সাইটটিও ব্লগস্পটে তৈরি করা। আবার ভিজিট করে দেখুন, বেশ ভালোই কিন্তু লাগছে। এটাতে কোন আলাদা প্ল্যাগ ইন ইনস্টল করা না থাকলেও Widget এবং HTML এডিটের মাধ্যমে সৌন্দর্য্যবর্ধনের চেষ্টা করা হয়েছে। 


পুরো সিরিজটি পড়ুন

৪. ব্লগস্পট সাইটে .com সহ অন্যান্য কাস্টম ডোমেইন যোগ করার পদ্ধতি
৫. ফেসবুক শেয়ার বাটন কিভাবে ব্লগার সাইটে যোগ করবো
৬. ব্লগার সাইটে এড দেখানোর পদ্ধতি


ব্লগস্পট ব্লগের সীমাবদ্ধতা- ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল

নিশ্চয়ই এর সীমাবদ্ধতা আছে, এটাতে আপনি ইচ্ছামত লিখতে পারবেন না, ইচ্ছামত ভিজিটর আনতে পারবেন না। সীমাবদ্ধতাগুলো হচ্ছে-
১. HTML/CSS ইচ্ছামত এডিট করা যায় না। Wordpress এর মত অনেক প্ল্যাগ ইন নেই, যেকারণে Dynamic একটা ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় না। তারপরও সুন্দর সাইট এটাতেও তৈরি করা যায়- এই সাইটটাই তো blogspot এ করা।
২. যেখান থেকে ইচ্ছা ভিজিটর আনা যায় না, ট্রাফিক এক্সচেঞ্জ বা, পিটিসি সাইটের ভিজিটর গুগোল সহ্য করতে পারে না। এই ধরণের কাজ ভূলেও করবেন না। যেদিন এইসব সাইট থেকে ভিজিটর আনবেন, পরেরদিন দেখবেন আপনার কাছে একটি ই মেইল গিয়েছে এবং ব্লগটি নেই। আবেদন করে অনেকদিন পর সেই ব্লগ ফেরত পেলেও পেতে পারেন। 
৩. www ছাড়া কোন ডোমেইন যোগ করা যায় না। এটাতেও দেখবেন tutorialsbangla.com লিখলে www.tutorialsbangla.com এ নিয়ে যাচ্ছে। Wordpress এ কিন্তু এটা করা যায়। সেক্ষেত্রে আপনি যেটা ইচ্ছা সেটা ব্যবহার করতে পারবেন। www চাইলে রাখবেন, না চাইলে বাদ দেবেন।

সবকিছুর পরে কেন এটা ব্যবহার করবেন- ব্লগস্পট টিউটোরিয়াল

 ১. সম্পূর্ণ ফ্রীতে এমন একটি হোস্টিং পাচ্ছেন যা ১০০% সময় অনলাইনে থাকবে। স্পিড খুবই ভালো, Dedicated server এর মত। আমি বাংলাদেশী একটি কোম্পানির Shared Hosting ব্যবহার করেছিলাম(সম্ভবত ওরা Reseller), ওয়েবসাইট লোড হতেই অনেক সময় নেই। দেখতে সুন্দর হলেও তখন এই ওয়েবসাইটের ভিজিটর কমে গিয়েছিলো, এখনো সেটা Recover করতে পারিনি। এটাতে কখনোই সেটা হবে না, কম স্পীডের ইন্টারনেটেও ব্রাউজ করতে পারবেন। 
 ২. যেকোন কাস্টম ডোমেইন যোগ করা যাবে।এমনকি ফ্রী যেগুলো পাওয়া যায় .tk, .ml. .ga. co.vu এগুলো যোগ করাতেও কোন বাধা নেই। আমি আগে .co.vu যোগ করেছিলাম, খুব ভালোভাবেই অনেকদিন  চলেছিলো। এখন .co.vu এর সেবা ভালো না, তবে অন্যগুলোতে আমি কোন সমস্যা দেখিনি। ভালো লেখা লিখলে আশা করা যায় কোন সমস্যা হবে না। 
 ৩. ফ্রী ssl certificate পাবেন, এটা অন্য সব জায়গায় টাকা দিয়ে কিনতে হয়, খারাপ প্রভাইডার হলে ঠিকমত কাজ করে না।এটা আগে কাস্টম ডোমেইনের জন্য দিত না, এখন দিচ্ছে। আপনি নতুন ব্লগার হলে ভাগ্যবান, সরকারী অনেক ওয়েবসাইটেরও SSL Certificate নেই, আপনার থাকবে। 
 ৪. HTML ফাইল সহজে এডিট করে নিজের মত তৈরি করে নেয়া যায়। আমি বলছি না Wordpress এর প্ল্যাগ ইন এর মত এত সহজ(তবে সেটাতো ফ্রী Wordpress এ পাওয়া যায় না)। কাস্টম টেমপ্লেট আর নতুন Widget যোগ করলে ওয়েবসাইটের চেহারাই বদলে যাবে। 
 ৫. নতুন ইউটিউবাররা তাদের ইউটিউব ভিডিওর এস ই ও এবং প্রমোশনের জন্য নিজের ব্লগ ব্যবহার করতে পারেন। শুধু ইউটিউব ভিডিওগুলো নিয়েও একটা ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়। ওয়েবসাইটে ইউটিউবের ভিডিও দিলে সেটা ইউটিউব সার্চেও উপরের দিকে উঠবে(অনেকটা রথ দেখা আর কলাবেচার মতো)।
 ৬. Robot.txt ফাইল, সাইটম্যাপ এগুলো নিয়ে ভাবতে হবে না।আর সাইট তাড়াতাড়ি লোড হওয়ার কারণে সার্চ ইঞ্জিনে উপরের দিকেই আপনার লেখাগুলোকে দেখতে পাবেন।
 ৭. 404 Error পেজের বদলে হোম পেজ বা, অন্য কোন পেজে নেয়ার ব্যবস্থা আছে- এই বিষয়ে আমরা টিউটোরিয়াল প্রকাশ করবো।

 এডসেন্স পাবেন কোন ঝামেলা ছাড়াইঃ

ব্লগস্পট ব্লগগুলোতে ইউটিউবের মত Hosted adsense দেয়া হয়। আপনার কাস্টম ডোমেইন না থাকলেও ভালো লেখা থাকলে আর ৬ মাসে বেশী ব্লগের বয়স হলে Adsense নিতে পারবেন। বাংলা ভাষার সাইটে Adsense এখন বৈধভাবে ব্যবহার করা যায়, এই সুযোগটা নেবেন না কেন? এডসেন্স নিয়েও আমাদের ধারাবাহিক টিউটোরিয়াল আছে, সেগুলোও চাইলে পড়তে পারেন। বড় আকারের এবং গুগোলের Policy মেনে লেখা অনেকগুলো আর্টিকেল থাকলে Adsense পাওয়া কোন ব্যাপার না, আর ভালো বিকল্পও আছে। আপনাকে সেটা নিয়ে ভাবতে হবে না। ওয়েবসাইটে ভিজিটর আনুন, আয়ের বুদ্ধি আমাদের কাছে পাবেন। 

গুগোলের ব্লগার সাইটের সীমাবদ্ধতা এবং সুবিধা দুইটা বিষয় নিয়েই আলোচনা করলাম। এখন কিভাবে একটি আকর্ষণীয় ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় এবং SEO friendly লেখা ধারাবাহিকভাবে লেখা যায় সেটা নিয়ে আমরা বিভিন্ন টিউটোরিয়াল উপরের লিস্টে যোগ করবো, আশা করছি আপনাদের উপকারে আসবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন