Wednesday, July 24, 2019

ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করা যায়? বিস্তারিত আলোচনা

Backlink Building

ব্যাকলিংক বলতে সাধারণত এমন লিংককে বুঝায় যা আপনার কাঙ্খিত ওয়েব পেজকে রেফার করে। দুই ধরণের ব্যাকলিংক হতে পারে-

  1. নিজের ওয়েব পেজে(internal Backlink)
  2. অন্যের ওয়েব পেজে(External Backlink)
গুগোল বা, অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন যখন একটি ওয়েব পেজকে র‍্যাংক করে তখন শুধু তাঁর মূল ডোমেইনের ক্ষমতা দেখে করে না। মনে করুন একজনকে রেফার করছে মন্ত্রী, আরেকজনকে এমপি- বেশী গুরুত্ব পাবে মন্ত্রীর রেফারেল। আবার মনে করুন, একজনের মামা, চাচা খালু সব রাষ্ট্রের বড় বড় মন্ত্রী, আমলা- তাকে অন্যদের কাছে যেতেই হবে না। 
ইন্টারনাল ব্যাকলিংক বা, নিজের এক পেজ থেকে অন্য পেজে লিংক দেয়াটা এই জন্য কাজে লাগে। আপনার কোন আর্টিকেল যদি সার্চে প্রথমে আসে আর সেটা থেকে অন্য একটি লেখাকে এংকর টেক্সট এর মাধ্যমে যুক্ত করা হয় সেটি বেশী গুরুত্ব পাবেই। 
আরেকটি, অন্য ওয়েবসাইট, ব্লগ, ফোরাম ইত্যাদিতে নিজের সাইটের লিংক দেয়া যা খুব একটা সহজ কাজ না।

ব্যাকলিংক তৈরি করা

অনেক ওয়েবসাইটে HTML সাপোর্ট করে, সেখানে এংকর টেক্সট এর মাধ্যমে ব্যাকলিংক তৈরি করবেন-
 <a href="নিজের লিংক">keyword</a> 
এটি হচ্ছে এংকর টেক্সট তৈরির ফরম্যাট যা, ব্লগার ওয়ার্ডপ্রেস সহ আরো বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে কাজে লাগবে। কিছু ক্ষেত্রে BB Code এর মাধ্যমে করতে পারবেন।  ফোরামগুলোতে এই পদ্ধতি কাজে লাগবে, সেখানে-
[url=নিজের লিংক]keyword[/url] - এই ফরম্যাট ব্যবহার করলেই হবে। এক্ষেত্রে একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, ব্যাকলিংক এর নামে স্প্যামিং করা যাবে না। অপ্রাসঙ্গিক বা, কোন গুরুত্ব বহন করে না এমন কমেন্ট বা, আর্টিকেল কেউ তাঁর ওয়েবসাইটে সহ্য করবে না।
এই সাইট থেকে যদি আপনি ব্যাকলিংক নিতে চান তাহলে আপনাকে একটি ভালো আর্টিকেল লিখতে হবে, তাঁর মাঝে একটি লিংক নিতে পারবেন। ৩০০-৪০০ শব্দে লেখা আর্টিকেল পড়ে যেন মনে হয় আপনি পাঠকদের কিছু শেখাচ্ছেন।
প্রচুর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং ওয়েবসাইট আছে যেগুলোতে প্রফাইল তৈরি করে সেখানে ওয়েবসাইটের ঠিকানাও দেয়া যায়, গুগোল অবশ্য এগুলোকে এখন কম গুরুত্ব দেয়।  

প্রাসঙ্গিকতা জরুরি

কখনোই ওষুধের দোকানে গিয়ে ১ কেজি মুগডাল চাইবেন না। আপনার সাইট/ব্লগ যদি হয় প্রযুক্তি সম্পর্কিত তাহলে ভালোবাসার কবিতার ওয়েবসাইটে সেই সাইটের ব্যাকলিংক কোন গুরুত্ব বহন করবে না। 

নিজের সাইটের লিংকগুলোর কিছু গালভরা নাম আছে, যেমনঃ কর্নারস্টোন আর্টিকেল, অরফান পেজ। অনেক আর্টিকেল থেকে যেটাতে লিংক করা থাকে এবং সবচেয়ে ভালোভাবে এস ই ও অপটিমাইজড সেগুলো কর্নারস্টোন আর্টিকেল। যে ওয়েবপেজের কোন ইন্টারনাল ব্যাকলিংক নেই সেগুলোকে বলা হয় এতিম পেজ

এতিম পেজগুলোকে কেউ দেখে না।  চেষ্টা করবেন যেন আপনার ওয়েবসাইটে কোন অরফান পেজ না থাকে। প্রাসঙ্গিক লিংক আর সঠিক কিওয়ার্ড এংকর হিসেবে ব্যবহার ছাড়া অন্য কিছু ব্যবহার করবেন না, করলেও কাজে লাগবে না। 

No comments:

Post a Comment