সোমবার, ৭ জানুয়ারী, ২০১৯

তাশখন্দ চুক্তি - ভারত এবং পাকিস্তানের যুদ্ধের অবসান

চিত্রঃ তাশখন্দ চুক্তি(ছবিটি কপিরাইটের আওতাভুক্ত)
১৯৬৫ সালে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যকার ১৭ দিনব্যাপী যুদ্ধের পর উজবেকিস্তানের রাজধানী তাশখন্দে এই তাশখন্দ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। জাতসংঘের মধ্যস্ততায় দুই পক্ষ যুদ্ধবিরতিতে একমত হলেও সৈন্য প্রত্যাহার নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বিমত ছিলো। 
সোভিয়েত প্রধানমন্ত্রী নিকোলাই কোসিগিনের উদ্যোগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রী এবং পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আইয়ুব খান এই চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন। ১৯৬১ সালের ভিয়েনা কনভেনশন  মেনে চলার ব্যাপারে উভয় পক্ষ একমত হন এবং যুদ্ধবন্দীদের স্বদেশে ফেরত পাঠাতে তারা সম্মত হন। অন্য দেশের দখলকৃত সম্পদ ফেরত দিতে সম্মত হন তারা। উভয় দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক এবং বাণিজ্যিক সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার ব্যাপারে তারা একমত হন। 

ভারতে এই চুক্তি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়, কারণ কাশ্মিরের গেরিলাদের আত্মত্যাগ এই চুক্তিতে অন্তর্ভূক্ত ছিলো না। তাসখন্দেই লাল বাহাদুর শাস্ত্রী রহস্যজনকভাবে মারা যান। ভারত সরকার তার মৃত্যুর উপর কোন প্রতিবেদন প্রকাশ করে না। পাকিস্তানে আইয়ুব খান চুক্তির কারণগুলো স্বীকার করতে অস্বীকৃতি জানান, পাকিস্তানে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ এবং দাঙ্গার সূত্রপাত হয়। 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন