বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৫

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন টিউটোরিয়াল

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন

যাদের ওয়েবসাইট আছে বা, ফ্রীল্যান্সিং এর জন্য সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন শিখতে চান, লেখাটি তাদের জন্য। নিশ্চয়ই আপনিও অন্য সবার মত চান যে গুগোলে কোন কিছু লিখে সার্চ দিলে আপনার সাইটটি সবার আগে দেখাক। লক্ষ্য করলে দেখবেন, খারাপ মানের সাইট অথবা ওই বিষয়েই না, সে ধরণের সাইটও প্রথম পাতায় দেখাচ্ছে। গুগোল কিন্তু এভাবে দেখাতে চায় না। ওরা চায় সবচেয়ে ভাল এবং প্রাসঙ্গিক সাইটটি সবার আগে দেখাতে। আপনার সাইটকে আগে দেখাতে চাইলে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন শিখতে হবে।
সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের প্রাথমিক ধারণা
এস ই ও শিখুন
                                                              photo credit: pixabay

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কি?

আগে যেটা বলেছি সেটাই। এস ই ও হচ্ছে গুগোলকে বা, আরো অনেক সার্চ ইঞ্জিন আছে সেগুলোকে বোঝানো যে আমার সাইট সবচেয়ে ভাল। গুগোল কিছু এলগরিদম ব্যবহার করে নির্ধারণ করে কোনটা ভাল এবং প্রাসঙ্গিক। সেজন্য কিছু কাজ করতে হবে। নিজের সাইটে এবং অন্যদের সাইটে। 

এস ই ও এর অংশগুলো

এর দুটি অংশ রয়েছে-

    ১.অন পেজ এস ই ও(নিজের সাইটে)
    ২.অফ পেজ এস ই ও(অন্য সাইটে)

অন পেজ এস ই ওঃ

এটি হচ্ছে নিজের সাইটে কাজ করা। যেমন ভাল কি ওয়ার্ড ব্যবহার করা, টাইটেল ট্যাগ, মেটা ট্যাগ এগুলো ব্যবহার করা, সাইটম্যাপ তৈরি Robot.txt ফাইল তৈরি এগুলো হচ্ছে অন পেজ সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। সহজে লোডিং হয় এরকম ধরণের ওয়েবসাইট তৈরি করাও এর মধ্যে পড়ে। সাইটের ডিজাইন আকর্ষণীয় করা এবং যারা ভিজিট করবে তাদের সুবিধার জন্য যা যা করা লাগে সব করা।

অফ পেজ এস ই ওঃ

নাম দেখেই বুঝতে পারছেন, এটা হচ্ছে নিজের ওয়েব পেজের বাইরে কিছু করা। এটি মূলত ব্যাকলিংক তৈরি করা। ব্যাকলিংক হচ্ছে অন্য সাইটে নিজের সাইটের লিংক দেয়া। যত ভাল মাণের সাইট থেকে আপনার সাইট ভিজিট করতে আসবে গুগোলের কাছে আপনার সাইটের গুরুত্ব তত বেড়ে যাবে। বাংলা সাইট খুব সহজেই প্রথম পেজে আসে, ইংরেজী সাইটের ক্ষেত্রে অনেক কিছু করা লাগে। ফোরাম পোস্টিং, ব্লগ পোস্টিং, বিভিন্ন হাই পেজ র‍্যাঙ্কের সাইটে ব্যবলিঙ্ক করা। সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি এডুকেশনাল(কোন ইউনিভার্সিটির সাইট) সাইটে ব্যকলিঙ্ক দিতে পারেন অথবা, কোন সরকারী সাইটে। 

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর প্রকারভেদ

দুই ভাগে এস ই ও কে ভাগ করা হয়। এগুলো হচ্ছে-
সাদা বা, কালো টুপির সাথে এর কোন সম্পর্ক নেই, এগুলো আসলে ভাল আর মন্দের সাথে সম্পর্কিত। White Hat হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন যেভাবে চায় সেভাবে করা আর Black Hat হচ্ছে দুর্বলতার সুযোগ নেয়া। ব্ল্যাকহ্যাট এস ই ও করে অনেক আজেবাজে সাইট প্রথম পাতায় চলে আসছে। এগুলো কিছুদিন পরে ব্ল্যাক লিস্টেড হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

শেষ কথা হচ্ছে, এখানে শুধু বৈধভাবে যে এস ই ও করা যায় সেটা নিয়ে আলোচনা করা হবে। নিয়মিত পড়ুন শিখতে পারবেন। আপনার যোগ্যতা যাই হোক না কেন আপনি এস ই ও চাইলেই শিখতে পারবেন। তবে যত সহজ ভাবছেন ব্যাপারটা আসলে ততটা সহজ না। সময় দিতে হবে, আর শেখার চেষ্টা করতে হবে। নিজের ওয়েবসাইট থাকলে ভাল হয়, না থাকলে blogspot এ একটা ফ্রী সাইট খুলে শুরু করুন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন