Låne Penger uten Sikkerhet | Tietokoneen Näyttö | Kredittkort Reiseforsikring | Billigste Strømleverandør | Billig Hyttealarm | Helseforsikring | Billigste Mobilabonnement 2017 | Billig Internett

ইউটিউব থেকে কত আয় করা যায়? এই প্রশ্নের উত্তর

আপনি একটি নতুন ইউটিউব চ্যানেল খুলতে যাচ্ছেন, তাই জানতে চাচ্ছেন একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে কত আয় করা যায়। হ্যাঁ, আপনি ঠিক জায়গায় এসেছেন। আমার নিজের দুই বছরের অভিজ্ঞতা এবং অন্য সব বিখ্যাত ইউটিউবারদের আয়ের অভিজ্ঞতার আলোকে এই লেখাটি। পৃথিবীতে অনেক মানুষই ইউটিউবকে নিজের পেশা হিসেবে গ্রহণ করেছেন, বাংলাদেশে অবশ্য এই সংখ্যাটা কম। এডসেন্স এর হোস্টেড একাউন্টের মাধ্যমে যেকোন চ্যানেলে এড দেখাতে পারবেন যদি ১০০০০ এর চেয়ে বেশী মোট ভিউ আপনার ভিডিওগুলোতে থাকে।

(গুগোল কত দেয় আর কত আয় করা যায় দুটি ভিন্ন বিষয়, আয় জনপ্রিয়তার উপর নির্ভর করে- কত আয় করা সম্ভব আপনি ভাবতেও পারবেন না)

প্রতি ১০০০ ভিউতে ইউটিউব থেকে কত টাকা পাওয়া যাবে?

এই প্রশ্নের সরাসরি উত্তর গুগোলও কখনো দিতে পারেনি, আমিও পারবো না। তবে এভারেজ CPM এবং এডে প্রতি ক্লিকের জন্য কত টাকা গুগোল দেয় সেটা সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিতে পারি। CPM হচ্ছে Cost Per Mile এর সংক্ষিপ্ত রূপ। এটা বলতে বুঝায় প্রতি ১০০০ এড ভিউ এর জন্য আয়। CPM সাধারণত $0.25 থেকে $10 এর মাঝে হয়। আর, বাংলাদেশী চ্যানেলগুলোতে (আমার অভিজ্ঞতা অনুসারে) $1 থেকে $3 আশা করতে পারেন। মনে রাখবেন এটা ১০০০ ভিউ এর জন্য না, ১০০০ এড ভিউ এর জন্য(কেউ কেউ এড ব্লক করে রাখে, আর সব ভিউতে এড দেখায়ও না)। প্রতি এড ক্লিকের জন্য $0.01 দেয় সাধারণত, তবে কখনো কখনো $0.02 দিতে পারে। ৮ থেকে ১০০০০ ভিউ এর জন্য এডসেন্স বাংলাদেশী চ্যানেলে $1 দেয় এটা মোটামুটিভাবে ধরে নিতে পারেন।

ইউটিউবের এডসেন্স CPM যে বিষয়গুলোর উপর নির্ভর করে

কোথা থেকে এড দেখা হচ্ছে, ভিডিওর ধরণ কি এবং যে এড দেখাচ্ছে সেই এড ব্লকের দাম কত সেটার উপর CPM নির্ভর করে। এডসেন্স টিউটোরিয়াল এর ধারাবাহিক আলোচনায় বলেছিলাম Bid এর মাধ্যমে আপনার এড ব্লকের জন্য সবচেয়ে বেশী টাকা যারা দেয় তাদের এড আপনার সাইটে বা, ইউটিউব এ দেখায়। এই এড ব্লকের দাম দেশের কারণে আলাদা হয়, কনটেন্টের ধরণের কারণেও আলাদা হয়। আবার কোথা থেকে দেখতে আসছে সেটার উপরও নির্ভর করে।

ইউটিউব থেকে আসলে কত আয় করা যায়

এবারে মূল কথায় আসি কত আয় করা সম্ভব। CPM এর কথা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে দেন, ১০০০০ ভিউ কিভাবে পাবেন এই চিন্তা করার কোন দরকার নেই। কারণ, প্রতি ১০০০০ ভিউ এর জন্য হয়ত ১-১.৫ ডলার করে আয় হবে। প্রতিদিন ১০-২০ হাজার ভিউ হওয়ার আগে আয়ের আশা না করাই ভালো। এটা কেন সেটা আগে বলি-

গুগোল আপনাকে দেয় ৫৫% আর নিজে নেয় ৪৫%। এতক্ষণ যে হিসাবটা বললাম সেটা আপনি যে ৪৫% পাবেন সেই হিসাবটা। এটা নিয়েও ভাবার দরকার নেই, গুগোলের চেয়ে বেশী অন্য কেউ দিতে পারবে না।

পৃথিবীর সবচেয়ে সফল ইউটিউবার Pewdiepie 4-5 মিলিওন ডলার করে মাসে আয় করে। কারণ তাঁর সাবস্ক্রাইবার আছে ৩০ মিলিওনের ও বেশী। আপনার সাবস্ক্রাইবার যদি বেশী থাকে এবং ভিউ যদি বেশী হয় আয় এমনিতেই বাড়বে। এখন, সম্ভবত বুঝতে পারছেন Pewdiepie এর মত আয় আপনি হয়ত করতে পারবেন না। তবে, অনেক মানুষ  পছন্দ করে এমন কিছু যদি তৈরি করতে পারেন তাহলে আপনিও জনপ্রিয়তা পেতে পারেন। একবার সফলতা পেলে আপনার ভিডিও আজীবন ইউটিউবে ভিউ হবে এবং আপনার আয় হতে থাকবে।

শেষ কথাঃ ইউনিক ভিডিও তৈরি করুন। আপনি যেটা ভালো পারেন সেটা নিয়ে নিজে ভিডিও বানান, অন্যদের সাহায্য নিতে পারেন কিন্তু কপি করবেন না। টাইটেল, ট্যাগ, ভিডিওর বর্ণনা ঠিকমত দিবেন। বেশী ভিউ পাওয়ার আশায় উল্টোপাল্টা দিবেন না- Community Guideline বা, Copyright এর চক্করে পড়লে চ্যানেল হারাতে পারেন। নিজেকে প্রশ্ন করুন, অন্যরা যদি Gold, Silver প্লে বাটন পায়, আপনি কেন না।

Series Navigation<< ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন এর উপায় জানতে চানবাংলাদেশী ছোট চ্যানেলের জন্য কোন ইউটিউব MCN সবচেয়ে ভাল >>
Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

শেয়ার
শেয়ার
নতুন কিছু লিখতে চাইআলোচনা করতে চাইআমার প্রশ্ন আছে