বাংলা ভাষা ও সাহিত্য || বিসিএস সিলেবাস বিশ্লেষণ

বিসিএস পরীক্ষাতে সবচেয়ে বেশী মার্কস এর উত্তর দিতে হয় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ে। এর ৩৫ মার্কস এর ভিতরে যারা বেশী মার্কস পায় তাদের প্রিলিমিনারীতে টিকে যাওয়ার সম্ভাবনাও তাই বেড়ে যায়।

মাণনন্টন ও সিলেবাস

ভাষা অংশে ১৫ এবং সাহিত্য অংশে ২০ মার্কস- মোট ৩৫ । আসুন এক নজরে মাণবন্টন দেখে নেয়া যাক-
ভাষা- ১৫ঃ
প্রয়োগ-অপপ্রয়োগ, বাক্য শুদ্ধি, বানান শুদ্ধি, পরিভাষা(ইংরেজী জানলে বাংলা পরীক্ষায়ও কাজে লাগে), ধ্বনি, বর্ণ, শব্দ, পদ, সমার্থক ও বিপরীতার্থক শব্দ, বাক্য, প্রত্যয়, সন্ধি ও সমাস। 
(বিশেষজ্ঞরা বলেন, এর বাইরে থেকেও প্রশ্ন হতে পারে)

সাহিত্য- ২০ঃ
  ক) প্রাচীন ও মধ্যযুগ- ০৫
  খ) আধুনিক যুক-১৫ 

আসুন ভিডিওতে কিছু প্রাসঙ্গিক আলোচনা দেখে নেই-

ভাষা বিষয়ে প্রস্তুতির জন্য নবম- দশম শ্রেণীর পাঠ্যবই যথেষ্ট। আর সাহিত্য বিষয়ে প্রস্তুতির জন্য একটু বিশ্লেশনাত্মক হতে হবে-
প্রাচীন এবং মধ্যযুগে মাত্র ৫ মার্কস, কিন্তু এখানে লেখকদের(কবি বলা উচিত, কারণ এরা সবাই কবি ছিলেন) সংখ্যাটা নির্দিষ্ট। নতুন কেউ এসে মধ্যযুগে লিখতে পারবেন না।
আধুনিক যুগের সিলেবাস ব্যপক হলেও কয়েকজন লেখক থেকে প্রশ্ন আসবেই। সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দিতে পারেন-
               ১. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
               ২. কাজী নজরুল ইসলাম
              ৩. মাইকেল মধুসূদন দত্ত
        ৪. ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর(এবং এরকম যারা কোন বিশেষ কারণে বিখ্যাত)

প্রথম তিনজন ছাড়া আধুনিক সাহিত্য অচল, শেষজন দেখিয়েছেন কিভাবে বাংলায় গদ্য লেখা যায়। তাই, এদের থেকে প্রশ্ন আসবেই। আর একটা কথা মনে রাখবেন- "বিখ্যাত লেখকদের অখ্যাত লেখা এবং অখ্যাত লেখকদের সবচেয়ে বিখ্যাত লেখাটিই কেবল বিসিএস পরীক্ষায় আসে।"

সিলেবাসের সবগুলো অংশ নিয়েই আমাদের বিশ্লেষনমূলক এবং ছবি ও ভিডিওযুক্ত লেখা ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হবে। চোখ রাখুন।


বিসিএস প্রস্তুতি এবং বিসিএস ক্যাডার হওয়ার উপায়

বিসিএস পরীক্ষা

বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় চাকরিগুলো হচ্ছে বিসিএস ক্যাডারভূক্ত চাকরি। এক্ষেত্রে প্রতিযোগিতাও কম না, উইকিপিডিয়ায় প্রাপ্ত তথ্যমতে প্রতিবছর প্রায় ২ লাখ থেকে ৩ লাখ পরীক্ষার্থী বিসিএস পরীক্ষা দেয় এবং তাদের মধ্য থেকে মাত্র ২% ক্যাডার হওয়ার সুযোগ পায়। সাধারণ ক্যাডারের ক্ষেত্রে সংখ্যাটা আরো কম প্রায় ০.৫%।
একবারেও বিসিএস ক্যাডার হওয়া সম্ভব

অনেকেই হচ্ছে, সম্ভব তো বটেই। পরিকল্পিত এবং কিছুটা অমানবিক(দানবীয় বলা যেতে পারে) পড়াশোনা যারা করে তারা একবারের চেষ্টাতেই বিসিএস পরীক্ষার প্রিলিমিনারী, লিখিত এবং ভাইভাতে সফলভাবে উত্তীর্ণ হয় এবং তারপর বলে- "এমনিই হয়ে গেছে"।

বিসিএস সিলেবাস এর বিষয়গুলো

আমরা প্রিলিমিনারী সিলেবাসভূক্ত বিষয়গুলোকে ১০ ভাগে ভাগ করেছি। অন্যরা কম বা, বেশী বলতে পারে। পিএসসি প্রদত্ত সিলেবাসের সঙ্গে সবার সিলেবাসই মিলবে(বলা চলে একই হবে)। বিষয়গুলো একনজরে দেখে নেয়া যাক-
    ১. বাংলা ভাষা ও সাহিত্য-৩৫
    ২. ইংরেজী ভাষা ও সাহিত্য-৩৫
    ৩. বাংলাদেশ বিষয়াবলি-৩০
    ৪. আন্তর্যাতিক বিষয়াবলি-২০
    ৫. ভূগোল, পরিবেশ ও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা-১০
    ৬.সাধারণ বিজ্ঞান-১৫
    ৭. কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি-১৫
    ৮. গাণিতিক যুক্তি-১৫
    ৯. মানসিক দক্ষতা-১৫
   ১০. নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন-১০

মোট ২০০ মার্কস এর উত্তর বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষায় দিতে হবে।

ব্লগস্পট সাইটের ডোমেইনে .com যোগ করার পদ্ধতি

নিচের ভিডিওটি দেখলে সবকিছু আপনাদের কাছে একদম পরিষ্কার হয়ে যাবে। ছবিতেই দেখুন দেখা যাচ্ছে .com, .org, .net, ,info with blogspot blog. এটা খুব সহজেই করা যাবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এই সাইটটি কিন্তু গুগোলের ব্লগস্পটেই করা। কাস্টম ডোমেইন আর, টেমপ্লেট প্রয়োগের ফলে এর চেহারাটা নিশ্চয়ই দেখতে পাচ্ছেন।
লেখাটি পুরোটা পড়ুন-



প্রায়োগিক ক্ষেত্রঃ
এই পদ্ধতি প্রয়োগ করে Godaddy, Namesilo, Namecheap, 1and1 সহ অন্যান্য যেকোন সাইট থেকে ডোমেইন কিনে ব্লগস্পটে লাগাতে পারবেন। সেক্ষেত্রে আপনার সাইটের নাম something.blogspot.com এর বদলে something.com হবে। 
এছাড়া freenom থেকে ফ্রী কোন ডোমেইন যেমনঃ .tk, .ga ইত্যাদিও লাগাতে পারবেন। নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-

1. blogger এর ড্যাশবোর্ড এ যান
2. এরপর সেখান থেকে 'Setting' এ যান। খুজে পাবেন নিচের দিকে। এরপর setting এ গিয়ে 'basic' নামে একটা অপশন দেখতে পাবেন প্রথমেই। সেখানে প্রবেশ করুন।
3. "Blog address" এর পাশে  'edit' লেখা দেখতে পাচ্ছেন নিশ্চয়ই। এটার উপর ক্লিক করুন।
4. এরপর  'third party domain' এ যান।
5. এবার ডোমেইনের নাম লিখুন।  write your registered domain
6. কাজ শেষ না, এখন আপনাকে ওরা সাজেস্ট করছে দুইটা জিনিস দেয়ার জন্য। একটা Name- www এর জন্য ghs.google.com এবং আরেকটা  vsdvdvdvdv(যেকোন কিছু হতে পারে) এর জন্য  point to / Target এ shebbeb(যেকোন কিছু)। save দিন, কাজ শেষ।

এখন কথা হচ্ছে, আপনার প্রথমবারে সমস্যা হতেও পারে। উপরের ভিডিও দেখলে সহজে বুঝবেন। আর, কমেন্ট বক্স সবসময় খোলা। সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করুন।